• A
  • A
  • A
প্রকৃত উপভোক্তার টাকা অন্যজনকে, DM-কে সত্যতা যাচাইয়ের নির্দেশ হাইকোর্টের

কলকাতা, ১৪ ফেব্রুয়ারি : প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় বরাদ্দের টাকা না পাওয়া সংক্রান্ত মামলায় সত্যতা যাচাইয়ের জন্য দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলাশাসক ওয়াই রত্নাকর রাওকে নির্দেশ দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাক। পাশাপাশি অবিলম্বে আসল উপভোক্তার কাছ থেকে সমস্ত নথি গ্রহণ করে তাঁকে প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য মগরাহাটের BDO-কে নির্দেশ দেন। গতকাল মামলার শুনানি হয়।


দক্ষিণ ২৪ পরগনার মগরাহাটের বাসিন্দা খাতেজা বিবি। বার্ধক্য বয়সে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় নাম উঠেছে শুনে খুশি হয়েছিলেন। খবর পাওয়া মাত্রই নথিপত্র সহ ব্লক আধিকারিকের কাছে আবেদন জানান খাতেজা। কিন্তু, দীর্ঘসময় কেটে গেলেও কোনও উত্তর আসেনি। পরে ব্লক অফিসে খোঁজ করতে গেলে তাঁকে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় তাঁর নামে আসা টাকা ইতিমধ্যেই তাঁকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

একথা শুনে আকাশ থেকে পড়েন খাতেজা। কে পেল টাকা? তাঁর নামে আসা টাকা কে নিয়ে গেল? তৎক্ষণাৎ ব্লক অফিসে অভিযোগ করে তিনি জানান কোনও টাকা পাননি। কিন্তু, মানতে নারাজ কর্তৃপক্ষ। তাঁরা তথ্য ঘেঁটে খাতেজাকে জানিয়ে দেন, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় তাঁর নামে আসা ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা তাঁর অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।


এরপর বাধ্য হয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন খাতেজা। গতকাল বিচারপতি দেবাংশু বসাকের এজলাসে মামলার শুনানির সময় খাতেজার আইনজীবী শেখ সামিউল হক ও ধনঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, খাতেজা বিবির প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার প্রকল্প ID ব্যবহার করে টাকা নিয়েছেন অন্য এক খাতেজা বিবি। এই বক্তব্য শুনে সরকারি আইনজীবী বলেন, ওটা ভুল হয়েছে। আমরা ভুল চিহ্নিত করেছি। ভুল লোকের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হয়েছে।

এরপর বিচারপতি জানতে চান, এখনও পর্যন্ত প্রকল্প বাবদ কত টাকা অন্য খাতেজা বিবিকে দেওয়া হয়েছে? উত্তরে সরকারি আইনজীবী বলেন, এক পয়সাও দেওয়া হয়নি। একটি কাগজ দেখিয়ে খাতেজার আইনজীবীরা পালটা বলেন, প্রকল্পের ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী সমস্ত টাকাই দেওয়া হয়েছে অন্য খাতেজাকে। এরপরই বিষয়টির সত্যতা যাচাইয়ের জন্য জেলাশাসককে নির্দেশ দেন বিচারপতি।

CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  জনমত পঞ্চমত ২০১৮

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  MAJOR CITIES