• A
  • A
  • A
খাজুরাহো- “দা টেম্পল অফ লাভ”

অনেক ব্যাপারে এগোলেও এখনও কিছু বিষয়ে পিছিয়ে আছে এদেশের মানুষ। যেমন ধরুন নারী পুরুষের সম্পর্ক নিয়ে তেমন আলোচনা হয় না। হলেও হয় আড়ালে। বিশেষ করে যৌনতার মতো বিষয় নিয়ে তৌ মুখই খোলেনা কেউ। এসবই অশ্লীলতা। প্রেম, ভালোবাসা, যৌনতা, এসব নিয়ে খোলামেলা মানসিকতা এখনও তৈরি হয়নি এদেশের মানুষের। কিন্তু অতীতের দিকে তাকালে দেখতে পাবেন, যৌনতা নিয়ে মানুষের চিন্তাভাবনা কতটা খোলামেলা ছিল। তাতে ছিল না কোনও লুকোচুরির বিষয়। ভারতে এমনই এক অন্যতম নিদশর্ন খাজুরাহো। এখানকার মন্দিরগুলির অনেকটা অংশ যৌনতা নির্ভর। এই স্থাপত্য শিল্পে স্পষ্টভাবে প্রকাশ পায় যৌনতা। সেই জন্য খাজুরাহো মন্দির “লাভ অফ টেম্পল” নামেও খ্যাত।


এদেশে বিয়ের পরই শারীরিক সম্পর্ককে বৈধতা দেওয়া হয়। কিন্তু খাজুরাহোর খোদাইগুলি দেখলে বুঝবেন, প্রাচীন ভারত ছিল ঠিক এর উলটো। খোলামেলা যৌনতা, প্রেম, সবই স্পষ্ট ফুটে উঠেছে পাথরে। আজ থেকে প্রায় কয়েকশো বছর আগে।




প্রায় ২০ কিলোমিটার জায়গা জুড়ে বিস্তীর্ণ এই মন্দিরগুলি। শিব, বিষ্ণু ও জৈনদের মন্দির হিসাবেই চিহ্নিত। মন্দিরের দেওয়ালে রয়েছে বিভিন্ন মূর্তির প্রতিকৃতি। এই কারুকার্যে তৎকালীন মানুষের জীবনযাপন প্রকাশ পায়। বিশেষ করে যৌনতা। অনেকেই আবার এটিকে দেবতাদের যৌন উল্লাসের কেন্দ্রও বলে থাকেন। একে অন্যের সঙ্গে মিলনের ইচ্ছা বা কাম যে মানব জীবনে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা জুড়ে রয়েছে তারই নিদর্শন খাজুরাহো। কামসূত্রের বিষয়গুলি এখানে প্রতীকী হিসাবে ফুটে উঠেছে।



মন্দিরের এই এরোটিক আর্ট মানব শরীরের সৌন্দর্য বড় নিপুণতার সঙ্গে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। নারী দেহের সৌন্দর্য প্রকাশ পেয়েছে। কেউ যৌনরত অবস্থায়, কারোর চুলখোলা আবার কেউ নৃত্যরত অবস্থায়। একাধিক নারী-পুরুষ একে অন্যের সঙ্গে লিপ্ত। এছাড়াও মন্দিরের দেওয়ালে সাধারণ মানুষ থেকে পশুপাখি ও অন্যান্য আরও চিত্র খোদাই করা আছে।



৯৫০ থেকে ১০৫০ খ্রীষ্টাব্দের মাঝামাঝি সময়ে নির্মাণ করা হয় এই মন্দিরগুলি। সেই সময় এমন চিন্তাভাবনা মানুষের ছিল, যা কিনা আজকের অত্যাধুনিক মানুষদের কল্পনার বাইরে। মধ্যপ্রদেশের ছাতারপুর জেলায় অবস্থিত খাজুরাহো, দিল্লি থেকে ৬২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এই নিদর্শন UNESCO ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের মধ্যে অন্যতম। তবে এখন এই মন্দিরের বেশির ভাগটাই ভগ্নস্তূপ। বর্তমানে ৮৫টি মন্দিরের মধ্যে মাত্র ২৫টি টিকে রয়েছে।

CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  জনমত পঞ্চমত ২০১৮

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  MAJOR CITIES