• A
  • A
  • A
সঙ্গীর মনের খবর নিতে চলে যান সোনার কেল্লায়

কয়েকশ বছর আগের তৈরি হলুদ পাথরের বিশাল দুর্গ। দেখে মনে হবে যেন সোনা দিয়ে গড়া। প্রথম এই দুর্গের দেখা পেয়েছিলাম ছোটোবেলায়। মুকুলের পূর্বজন্মের স্মৃতিতে। যে স্মৃতি হাতড়ে ডা. হাজরা মনস্তত্ত্বর নতুন দিকে খুঁজতে চেয়েছিলেন। আর অমিয়নাথ বর্মণ ও মন্দার বোস চেয়েছিলেন দুর্গের সম্পদের মালিক হতে। মিলিয়েও মেলাতে পারছেন না তো? হ্যাঁ, সোনার কেল্লার কথাই বলছি।

ফোটো সৌজন্য tourism.rajasthan.gov.in/jaisalmer


সত্যজিৎ রায়ের সোনার কেল্লা ছবিতে মুকুলের চোখেই প্রথম দেখা জয়সলমেরের দুর্গ। তারপর থেকেই মনে হয়েছিল সোনার কেল্লাটা একবার নিজে চোখে দেখে এলে কেমন হয়? সত্যিই কি ওই বিশাল দুর্গ সোনা দিয়ে তৈরি? তবে পরে যখন চাক্ষুষ করলাম তখন বুঝলাম ওই চমক হলুদ পাথরের। ১১৫৬ খ্রিষ্টাব্দে এই পাথরের দুর্গ বানিয়েছিলেন রাজপুত রাজা রাওয়াল জয়সল। নিজের নামেই রেখেছিলেন দুর্গর নাম, জয়সলমের দুর্গ। সেই দুর্গ এখনও থর মরূভূমির বুকে রাজপুতানা ঠাঁটবাট নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। কেমন এই দুর্গের ভিতরটা? কী আছে সোনার কেল্লায়? সেসব দেখতে সপ্তাহখানেকের ছুটি নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন জয়সলমের। আর যদি সদ্য সাতপাকে বাঁধা পড়ে থাকেন, তবে সঙ্গীর মনের গভীরের খোঁজ নিন মরূভূমির মরীচিকাতেই।


হানিমুনটা একটু রাজার হালে কাটাতে চাইলে জয়সলমের থেকে ভালো জায়গা আর কিছু হতে পারে না। তাই দিন সাতেকের ছুটি নিয়ে রওনা দিন রাজস্থানের পথে। রাজ্যের অন্যতম বড় শহর জয়সলমের। একদিকে ধূ ধূ বালির প্রান্তর। তারমধ্যে হলুদ পাথরে তৈরি জয়সলমের দুর্গ। সোনার শহরে সোনার কেল্লা। যেকোনও বড় শহরের সঙ্গেই রেলপথে যোগাযোগ রয়েছে জয়সলমেরের। আর আকাশপথে যেতে হলে সবথেকে কাছের এয়ারপোর্ট যোধপুর। সেখান থেকে গোল্ডেন সিটিতে যেতে গাড়ি ভাড়া করে নিন।



ফোটো সৌজন্য tourism.rajasthan.gov.in/jaisalmer

থাকার জন্য হোটেল আগে থেকেও বুক করতে পারেন। আর মনের মতো হোটেল একটু দেখেশুনে বুক করতে চাইলে গিয়ে করুন। তবে জয়সলমেরে একটু অ্যাডভেঞ্চার করতে চাইলে পুরো সময়টা হোটেলে না কাটিয়ে এক-দু’দিন কাটাতে পারে টেন্টে। এখানকার তাঁবুতে থাকার ব্যবস্থা বেশ জনপ্রিয়। রাতের বেলা তাঁবুর মালিকরা সেখানে নানারকম অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকেন। রাজস্থানী ফোক নৃত্য থেকে শুরু করে স্থানীয় গায়কদের গানের আসর থাকে। সেসব তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করতে পারবেন।



ফোটো সৌজন্য tourism.rajasthan.gov.in/jaisalmer

জয়সলমের মানেই প্রধান দ্রষ্টব্য অবশ্যই দুর্গ। যাকে বলে সোনার কেল্লা। যা ছোটোবেলায় আমাদের মকুলের চোখ দিয়ে দেখিয়েছিলেন সত্যজিৎ রায়। ২০১৩ সালে এই দুর্গকে হেরিটেজ সাইট ঘোষণা করে UNESCO। দুর্গের ভিতরে রয়েছে অনেক মন্দির। কয়েকশ বছরের পুরোনো স্থাপত্যের অসংখ্য নিদর্শন রয়েছে এই দুর্গে। এছাড়া জয়সলমেরের দেখার জায়গা রয়েছে অনেক। মরুভূমির চতুর্দিকে ছড়ানো রয়েছে ইতিহাস। আর সেসব ইতিহাস যদি একজায়গায় দেখতে চান তবে ঘুরে আসতে পারেন জয়সলমের গভর্নমেন্ট মিউজ়িয়াম। সময় করে অবশ্যই ঘুরে আসবেন জয়সলমেরের হাভেলিগুলো। জয়সলমেরের সবথেকে বড় হাভেলি হল পতোঁ কি হাভেলি। আরও যে দুটি জিনিস মিস করবেন না, তা হল আকাল উড ফসিল পার্ক, ডেজ়ার্ট ন্যাশনাল পার্ক। এছাড়া সঙ্গীর হাত ধরে টুকটুক করে ঘুরে দেখে নিন রাজপুতদের গোটা শহরটাই। মরুভূমির বুকে উটের পিঠে চড়তে ভুলবেন না। এখানকার অন্যতম রোমাঞ্চ ক্যামেল সাফারি।

জয়সলমের ঘুরে আসার জন্য ছয় থেকে সাতদিনের ছুটি যথেষ্ট। আর যাওয়ার উপযুক্ত সময় অক্টোবর থেকে মার্চ।

CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  জনমত পঞ্চমত ২০১৮

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  MAJOR CITIES