• A
  • A
  • A
মালয়েশিয়ায় কাজে গিয়ে বন্দী বাংলার ৩২

কলকাতা, ৯ নভেম্বর : মালয়েশিয়ায় কাজে গিয়ে বন্দী রাজ্যের ৩২ জন যুবক। তাঁদের পাসপোর্ট কেড়ে দুটি ঘরে বন্দী করে রাখা হয়েছে। এদের বাড়ি দুই ২৪ পরগনা, হুগলি ও বীরভূমে। বন্দী যুবকদের মধ্যে দুজন হোয়াটসঅ্যাপ ভিডিয়োতে তাঁদের উদ্ধারের আর্জি জানানোর পরই এই ঘটনা সামনে আসে। এদের উদ্ধারে বিদেশমন্ত্রকের কাছে সাহায্য চেয়েছে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। ন্যাশনাল অ্যান্টি ট্র্যাফিকিং এজেন্সিও প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরে চিঠি লিখেছে।

ছবিটি প্রতীকী


ভিডিয়ো বার্তাতে বলা হয়েছে, ৩২ জনের মধ্যে কয়েকজনকে একটি ক্যাসিনো ও বাকিদের একটি নির্মাণ কম্পানির কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। এমনকী তাঁরা দাবি করেছেন যে ক্যাসিনো কর্মীরা তাঁদের হুমকি দিয়েছে এই বলে যে, তাঁদের দেহগুলি বাড়ি পৌঁছে যাবে। বন্দী অবস্থায় তাঁদের খাবার দেওয়া হয়নি। এমনকী অসুস্থ হওয়ার পরও তাদের চিকিৎসার সুযোগ দেওয়া হয়নি।
যে ভিডিয়োটি প্রকাশ্যে এসেছে, তাতে দু'জন যুবক জানিয়েছেন, মালয়েশিয়া পৌঁছানোর পর তাঁদের পাসপোর্ট ও ভিসা কেড়ে নেওয়া হয়। এরপর তাঁদের মালয়েশিয়ার রাজ্য সারাওকের রাজধানী কুচিঙে নিয়ে যাওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট NGO-র আধিকারিক শেখ জিন্নার আলি বলেন, "৩২ জনের মধ্যে ২৫ জনকে একটি ঘরে বন্ধ করে রেখেছে একজন ক্যাসিনোর স্টাফ। বাকি সাতজনকে রাখা হয়েছে অন্য আরেকটি ঘরে।" তিনি আরও জানান, মালয়েশিয়ার ভারতীয় দূতাবাসের তরফে জানানো হয়েছে সেদেশের পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তারা ইতিমধ্যেই কুচিঙে বন্দী যুবকদের অবস্থান চিহ্নিত করতে পেরেছে।


তিনি বলেন, "কবির হুসেন নামের একজন ব্যক্তি ভালো প্যাকেজের কথা বলে ৩২ জনকে প্রলুব্ধ করে। ওই ব্যক্তি উত্তর ২৪ পরগনার গোপলনগরে একটি জব কনসালটেন্সি চালান। সেপ্টেম্বর মাসে ট্যুরিস্ট ভিসাতে মালয়েশিয়া যাওয়ার আগে ওই যুবকদের প্রত্যেককে ৮০,০০০-৯০,০০০ টাকা দিতে হয়েছিল হুসেনকে।" তিনি আরও বলেন, "আমরা যুবকদের পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা জানায় যে হুসেনের এজেন্টরা মালয়েশিয়া থেকে ওদের ফিরিয়ে আনতে বিপুল পরিমাণ অর্থ দাবি করেছিল। টাকা দেওয়ার পরও ওদের দেশে ফিরিয়ে আনা হয়নি।"


CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES