• A
  • A
  • A
শিল্পবান্ধব রাজ্য : পাঁচ সংস্কারে ৫ ধাপ উপরে উঠে দশে বাংলা

কলকাতা, ১২ জুলাই : মূলত পাঁচটি সংস্কার। ১. লগ্নি সংক্রান্ত তথ্য স্বচ্ছতার সঙ্গে সহজে পাওয়া। এক জানালা (ওয়ান উইন্ডো) পদ্ধতির প্রয়োগ। ২. শিল্পের জন্য উপযুক্ত জমির সন্ধান। ৩. সহজেই নির্মাণ ও পরিবেশ দপ্তরের ছাড়পত্র পাওয়া। ৪. সড়ক যোগাযোগের উন্নতি। ৫. সরকারের বনধ সংস্কৃতির বিরোধিতার ফলে কর্মদিবস বৃদ্ধি। আর তাতেই কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রকের অধীনস্থ ডিপার্টমেন্ট অফ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পলিসি অ্যান্ড প্রোমোশন (DIPP)-এর ক্রমতালিকায় বাণিজ্যবন্ধু হিসেবে পাঁচ ধাপ উপরে উঠে পশ্চিমবঙ্গ এখন ১০-এ। ক্রমতালিকায় প্রথম তিন স্থানে আছে অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলাঙ্গানা ও হরিয়ানা।


রাজ্যগুলির মধ্যে বিজ়নেস রিফর্মস অ্যাকশন প্ল্যানের ভিত্তিতে ফিবছর তালিকা প্রকাশ করে কেন্দ্র। তথ্য বলছে, শিল্প-বাণিজ্য মন্ত্রক ও বিশ্ব ব্যাঙ্কের তৈরি করা রিপোর্ট ভিত্তিক তালিকায় ২০১৫ সালে কাজের ভিত্তিতে পশ্চিমবঙ্গ ছিল একাদশ স্থানে। তার আগে অর্থাৎ ২০১৪ সালে প্রথম প্রকাশিত তালিকায় ২৯টি রাজ্য ও ৭টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ ছিল ২২ নম্বরে। বিষয়টির গুরুত্ব বুঝে সে সময় তৎপর হোন মুখ্যমন্ত্রী। কয়েকজন সিনিয়র আমলা এবং বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদদের নিয়ে তৈরি করে দেন বিশেষ কমিটি। সুফল মেলে হাতেনাতে। পরের বছরেই (২০১৫) ১১ ধাপ এগিয়ে যায় রাজ্য। কিন্তু, তার পরের বছর অর্থাৎ ২০১৬ সালে ফের ছন্দপতন। চার ধাপ পিছনে চলে যায় রাজ্য। আর শেষ রিপোর্টে রাজ্যের স্থান দশম।

রিপোর্ট তৈরি হয়েছে কীসের ভিত্তিতে ?



কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রক আগেই ঠিক করে দিয়েছিল ৩৭২টি ইনডেক্স। রাজ্য সরকার এর মধ্যে পাস করেছে ৩৭০টিতেই। রিপোর্ট বলছে, সংস্কারের নিরিখে পশ্চিমবঙ্গ পেয়েছে ৯৯.৪৬% নম্বর। এ প্রসঙ্গে রাজ্য শিল্প-বাণিজ্য দপ্তরের অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি অনির্বাণ ধর বলেন, "বিষয়টি আমরা দেখেছি। এর বেশি কিছু বলব না।"



বিগত বছরগুলোর নিরিখে এবার যোগ করা হয়েছিল নতুন একটি বিষয়। রিপোর্ট প্রস্তুতকারকরা চেয়েছিলেন, বাস্তবের জমিতে সংস্কারের সুফল শিল্পপতিরা পাচ্ছেন কি না তা মেপে নিতে। সেজন‍্য বেসরকারি শিল্পমহলের প্রতিক্রিয়াও জানতে চাওয়া হয়েছিল। দেখা যাচ্ছে, সেখানেই পিছিয়ে পশ্চিমবঙ্গ। এক্ষেত্রে রাজ্যের স্কোর মাত্র ৫৩.৬৯%। প্রথম তিনে থাকা রাজ্যগুলির স্কোর সেখানে ৮০ শতাংশেরও বেশি। ক্রমতালিকায় পশ্চিমবঙ্গের পিছনে থাকা উত্তরাখণ্ড, উত্তরপ্রদেশও শিল্পমহলের কাছে বেশি নম্বর পেয়েছে। এ প্রসঙ্গে ওয়েস্টবেঙ্গল ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন (WBIDC)-র ভাইস চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকার বলেন, "বর্তমান সরকার উন্নয়নের বেশ কিছু কাজ করেছে। কিন্তু, এই বিষয়ে পিছিয়ে থাকার কারণ রয়েছে। এ রাজ্যে জনসংখ্যার তুলনায় জমি কম। যার ফলে এক লপ্তে বড় জমির অভাব হয়েছে। যার একটা বিরূপ প্রভাব তো আছেই। তাছাড়া একটা বড় বিনিয়োগ এমনি এমনি আসে না। ধরে নিন কোনও একটি সংস্থা অন্য রাজ্যে বিনিয়োগ করছে। নিয়ম হল সেই সংস্থাটি ধাপে ধাপে বড় বিনিয়োগ করবে। বিনিয়োগ মাঝপথে থামিয়ে এরাজ‍্যে আনার সুযোগ নেই। এটা মেনে নিতেই হবে।" বিষয়টি নিয়ে কথা বলার চেষ্টা হয়েছিল শিল্পমন্ত্রী অমিত মিত্রের সঙ্গে। কিন্তু, তাঁর প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

সূত্র জানাচ্ছে, শিল্পমহলের প্রতিক্রিয়াকে এবছর তুলনায় কম গুরুত্ব দেওয়া হয়েছিল। আগামী বছরের তালিকায় তার প্রভাব থাকবে অনেক বেশি। আর তাই শিল্পমহলের আস্থা জয়ই আগামী বছরে রাজ্য সরকারের কাছে বড় এক চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

শিল্পবান্ধব রাজ্য : একনজরে প্রথম ১৫

টপ অ্যাচিভারস (৯৫ শতাংশের বেশি স্কোর)
অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলাঙ্গানা, হরিয়ানা, ঝাড়খণ্ড, গুজরাত, ছত্তিশগড়, মধ্যপ্রদেশ, কর্নাটক, রাজস্থান

অ্যাচিভারস (৯০-৯৫ শতাংশ স্কোর)
পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরাখণ্ড, উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, ওড়িশা, তামিলনাড়ু


CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES