• A
  • A
  • A
“স্টোর থেকে জিনিস নিচ্ছিলাম, হঠাৎ পিছনে খামচে ধরে লোকটি”

বহরমপুর, ৯ জুন : ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে কেনাকাটা করতে গিয়ে শ্লীলতাহানির শিকার হলেন এক মহিলা। গতকাল সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদের বহরমপুর থানার গোরাবাজার এলাকায়। স্টোরের CCTV ফুটেজ সংগ্রহ করে আজ বহরমপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই মহিলা। পাশাপাশি সোশাল মিডিয়াতেও CCTV ফুটেজটি পোস্ট করেন তিনি। মলের কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযুক্তকে আড়াল করা ও অসহযোগিতার অভিযোগ করেছেন ওই মহিলা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বহরমপুর থানার পুলিশ।

শুনুন মহিলার বক্তব্য


মহিলা বলেন, “গতকাল সন্ধ্যায় মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে কেনাকাটা করতে গিয়েছিলাম। কেনাকাটা চলাকালীন একটি লোক আমাকে কয়েকবার ধাক্কা মারে। বিষয়টি নিয়ে সেসময় লোকটিকে সতর্ক করি আমি। কিন্তু তারপরেও আমার পিছু ছাড়েনি সে। পরে আমি যখন নিচু হয়ে স্টোরের তাক থেকে জিনিস নিচ্ছিলাম সেসময় হঠাৎই আমার শরীরের পিছনের অংশে খামচে ধরে লোকটি।”


এই ঘটনায় কয়েক মুহূর্তের জন্য কার্যত বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন ওই মহিলা। তিনি বলেন, “আমি এতটাই শকড্ হয়ে গিয়েছিলাম যে কয়েক মুহূর্ত কথা বলতে পারিনি। তারপর আমি ওই লোকটিকে প্রশ্ন করি, এটা কী হল? তখন সে আমাকে কু ইঙ্গিত করে সেখান থেকে চলে যাওয়ার চেষ্টা করে। স্টোরের একজন কর্মী ছাড়া আমাকে কেউ সাহায্য করতে এগিয়ে আসেননি সেসময়। স্টোরে যারা ওই সময় কেনাকাটা করতে এসেছিলেন তাঁদের মধ্যেও অনেকে ওই লোকটির পক্ষ নেন। এরপর ওই লোকটিকে স্টোর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়। আমি অভিযোগ জানাতে গেলে স্টোরের কর্মীরা আমাকে বিষয়টি চেপে যেতে বলে।”

এরপর মহিলা তাঁর স্বামীকে ফোন করে ঘটনাটি জানান। স্ত্রীর কাছে সব শুনে ওই স্টোরে যান তাঁর স্বামী। কিছু স্থানীয় লোকও তখন সেখানে জড়ো হয়। সবাই স্টোরের CCTV ফুটেজ দেখানোর দাবি জানায়। এরপর স্টোরের তরফে CCTV ফু়টেজ দেওয়া হয়। সেই ফু়টেজ নিয়ে সোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করে ঘটনার প্রতিবাদ জানান মহিলা। বিষয়টি জানাজানি হতেই শোরগোল শুরু হয়।

আজ দুপুরে বহরমপুর থানায় CCTV-র ফুটেজ সহ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মহিলা। মহিলা বলেন, “বহরমপুর থানার IC আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। পুলিশ সুপারও আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। তাঁরা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন অপরাধীকে ধরা হবে।”

ওই মহিলা বলেন, “আমার স্বামী, আমার পরিবার পাশে রয়েছে। যে মেয়েদের উপরে এই ধরনের অত্যাচার হচ্ছে তাঁরা সকলেই এগিয়ে আসুক। সবাই মুখ খুলুক। এসব কেউ মুখ বুজে সহ্য যেন না করে। নোংরা লোকগুলিকে টেনে বের করা হোক। এদের চিনিয়ে দেওয়া হোক। এদের কঠোর শাস্তি হোক।’

এপ্রসঙ্গে বহরমপুর থানার IC সনৎ দাস বলেন, “অভিযুক্তকে শনাক্ত করা হয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।”



CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  পুজোর খবর

  MAJOR CITIES