• A
  • A
  • A
“হাত ধরে টেনে সই করিয়ে নিল”, বলছেন কংগ্রেস প্রার্থী

বহরমপুর, ১১ এপ্রিল : তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের হামলায় রাতভর আতঙ্ক ছড়াল শহরে। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের জন্য বাড়ি বাড়ি আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। বহরমপুর সুতির মাঠের ভাকুড়ি-১ পঞ্চায়েত এলাকায় চারজন কংগ্রেস প্রার্থীর বাড়িতে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। বাড়িতে ঢুকে মহিলাদের শ্লীলতাহানি করা হয়েছে বলেও অভিযোগ। বহরমপুর থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

টুম্পা গুহ মজুমদারের বক্তব্য


মনোনয়নপত্র দাখিল করতে গিয়ে একদফা সংঘর্ষ আগেই হয়েছে। তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের অস্ত্র নিয়ে আস্ফালনের জেরে অনেক জায়গায় মনোনয়ন কেন্দ্রের ধারে-কাছে ঘেঁষতে পারেনি বিরোধীরা। যে ক’জন মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন এখন তাঁরা পড়েছেন ফাঁপরে। মনোনয়ন প্রত্যাহারের জন্য আসছে দ্বিগুণ চাপ। তাতেও কাজ না হওয়ায় গতরাতে শ’দেড়েক দুষ্কৃতী সুতির মাঠ এলাকায় পরপর চারটি বাড়িতে ভাঙচুর চালায়। খুনের হুমকিও দেওয়া হয়। প্রত্যেকেই কংগ্রেসের প্রতীকে মনোনয়ন জমা করেছিলেন। মনোনয়ন প্রত্যাহারের নামে বাড়িতে গিয়ে মহিলাদের হাত ধরে টানাটানি করা হয় বলেও অভিযোগ।


টুম্পা গুহ মজুমদার নামে কংগ্রেসের এক প্রার্থী দুষ্কৃতীদের ভয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করতে বাধ্য হন। তিনি বলেন, “মুখে কালো কাপড় বেঁধে আগ্নেয়াস্ত্র হাতে ২০-২৫ জন আমার বাড়িতে এসেছিল। আমার স্বামীর নাম ধরে ডেকে দরজা খোলার কথা বলে। আমি বললাম, বাড়িতে নেই। বলছে, আপনি বাইরে বেরিয়ে আসুন। আমি প্রথমে বেরোতে চাইনি। এরপর দরজায় প্রচণ্ড জোরে ধাক্কা মারতে শুরু করে। ভয়ে আমি দরজা খুলি। আমার হাত ধরে বলে, তাড়াতাড়ি এখানে সই করুন। আমি বলি কীসের জন্য ? বলে, মনোনয়ন প্রত্যাহার করতে হবে। আমি বললাম, কেন প্রত্যাহার করব ? বলে, এখনই ওইদিকে ভাঙচুর করে এলাম, এখানেও কি সেটা হবে ? আমি ভয়ে সই করে দিয়েছি। ওদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল।” দুষ্কৃতী হামলার পর বহরমপুর থানায় খবর দেন আক্রান্তরা। পুলিশ এসে তদন্ত শুরু করে। এদিকে, রাতেই আক্রান্তদের বাড়ি গিয়ে খবর নিয়ে আসেন বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তী।


CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  জনমত পঞ্চমত ২০১৮

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  MAJOR CITIES