• A
  • A
  • A
পার্টনারের সঙ্গে পাসওয়ার্ড শেয়ার করেন ?

সম্পর্ক ভালো থাকবে না খারাপ সেটা পুরোটাই আপনাদের উপর নির্ভর করে। পার্টনারের সঙ্গে গোপন জিনিসগুলি শেয়ার করবেন কি না সেটা একেবারেই আপনার বিষয়। আর এই প্রযুক্তির যুগে গোপন জিনিস বলতে মূলত সোশাল মিডিয়া, মেল ও ফোনের পাসওয়ার্ডের কথাই বোঝায়। লকারের থেকে বেশি গোপন জিনিস নিজের ফোনের মধ্যেই রাখেন অনেকে। কিন্তু, অনেকেই পার্টনারের সঙ্গেও ফোন শেয়ার করতে চান না। ফোনের প্রতিটি অ্যাপেই পাসওয়ার্ড দিয়ে রাখেন। তবে পার্টনারের এগুলি শেয়ার করার মানে আপনাদের মধ্যে গোপনীয়তার কোনও বিষয় নেই। সব ক্লিয়ার। আর এর মধ্যে দিয়ে আপনাদের সম্পর্ক একটা আলাদা মাত্রা পেয়ে যায়।


বিশ্বাস সব থেকে বড় বিষয়


  • আপনারা দু’জনেই যদি একে অপরের সঙ্গে সোশাল মিডিয়া, ফোন ও মেলের পাসওয়ার্ড শেয়ার করেন, তাহলে বুঝতে হবে আপনাদের মধ্যে বিশ্বাসের মাত্রা চরম। আর আপনারা সম্পর্কটিকে একটা আলাদা মাত্রায় নিয়ে যেতে পারেন। বিশ্বাস যদি বেশি থাকে তাহলে সম্পর্ক নিয়ে আলাদা করে চিন্তা করার কিছুই থাকে না।

আড়াল করার কিছুই নেই

  • আপনারা একে অপরের সঙ্গে পাসওয়ার্ড শেয়ার করা মানে আপনাদের গোপন করার কোনও জিনিসই নেই। দু’জনেই একে অপরের কাছে ক্লিয়ার। এতে যদি আপনার কোনও সমস্যা না থাকে তাহলে চিন্তার কোনও বিষয় নেই।

নাক গলানো

  • পাসওয়ার্ড জানার ফলে আপনার ফোন থেকেই নেট সার্ভ করতে পারেন পার্টনার। অনেক সময় এমনও হয় যে আপনার অ্যাকাউন্ট থেকেই তিনি কথা বলে নিলেন। এতে যদি আপনার কোনও সমস্যা না থাকে তাহলে ঠিক আছে। তবে সমস্যা হলে পার্টনারকে বারণ করতে পারেন। আপনার যে এটা ভালো লাগে না তাও বলুন। তবে রেগে গিয়ে নয়। বুঝিয়ে বলুন।

প্রতিশোধ নেওয়া

  • তবে এক্ষেত্রে একটা ছোট্ট সমস্যা হয়। যেমন, আপনি পার্টনারের সঙ্গে সব কিছুই শেয়ার করেছেন সম্পর্কে থাকাকালীন। এদিকে কোনও কারণে আপনাদের ব্রেকআপ হয়ে গেছে। এরপর সঙ্গে সঙ্গে নিজের পাসওয়ার্ড চেঞ্জ করে নিন। নাহলে পস্তাতে পারেন। পার্টনার যদি অবুঝ হয়ে থাকে তাহলে এভাবে প্রতিশোধ নেওয়া অনেক সহজ হয়ে যায়। আর একটা অধ্যায় যখন ক্লোজ় করতেই যাচ্ছেন তখন সবদিন ঠিক রেখেই করা ভালো।

একে অপরের কোনও স্পেস নেই

  • এই বিষয় অনেকের সমস্যা হতেই পারে। কারণ আপনি কার সঙ্গে কথা বলছেন সেটা নিয়ে সব সময় যদি পার্টনার আপনাকে কথা শোনায় বা কোনও ছেলের সঙ্গে কথা বললে আপত্তি জানায় তাহলে খুবই বিরক্তিকর। কারণ আপনার সোশাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে আপনি কার সঙ্গে কথা বলবেন সেটা আপনার বিষয়। তবে কীভাবে, কোন বিষয় নিয়ে কথা বলছেন সেটা নিয়ে পার্টনার আপত্তি জানাতেই পারেন। কিন্তু, কথা বলবেন না বলেবেন না সেটা আপনার ব্যক্তিগত।



CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  জনমত পঞ্চমত ২০১৮

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  MAJOR CITIES