• A
  • A
  • A
সম্পর্কের শিক্ষা অভিভাবকদের থেকে নেওয়া উচিত

সম্পর্ক নিয়ে আমরা একটু বেশি চিন্তিত থাকি। কখনও কখনও সেটা আমাদের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। সম্পর্কে কোনও সমস্যা হলেই আমাদের মাথা গরম হয়ে যায়। অনেক সময় আমরা অভিভাবকদের বলি, “সম্পর্কের বিষয়গুলি তোমরা বুঝবে না।” কিন্তু, আমাদের এই ধারণা একেবারেই ভুল। ওই বিষয়গুলি অভিভাবকরা আমাদের থেকে অনেক ভালো বোঝেন। বরং আমাদের উচিত সম্পর্কের জটিল সমীকরণগুলি তাদের থেকেই ভালোভাবে বুঝে নেওয়া।


সম্পর্ক একটা সঙ্গ হয়ে দাঁড়ায়


  • কোনও সম্পর্কের শুরুতে সেটা ভালোবাসার অনুভূতিটিকে সবাই উপভোগ করতে চান। কিন্তু, কয়েক বছর কাটতে কাটতে বিষয়টি একটা সঙ্গ দেওয়ার পর্যায় পৌঁছে যায়। অনেকেই সেটা মেনে নিতে পারেন না। তখন সম্পর্ক কেমন যেন একঘেয়ে হয়ে যায়। তবে তখন সম্পর্ক থেকে না বেরিয়ে বিষয়টি মেনে নেওয়া খুব দরকার। একে অপরকে সঙ্গ দেওয়াও অনেক বড় বিষয়। সেটা অবশ্যই আমাদের অভিভাবকদের থেকে শিখে নেওয়া দরকার।

ধৈর্য একটা বড় বিষয়

  • যা এই জেনারেশনের অনেকের মধ্যেই থাকে না। প্রথমে কোনও সম্পর্কওই পারফেক্ট হয় না। আর হবেই বা কীভাবে ? দুটো মানুষ দুটো ভিন্ন পরিবেশে বড় হয়েছে। সেখানে তাদের ভালোলাগা খারাপলাগা সবই আলাদা। তাই একজনের সঙ্গে আরেকজনের মনের মিল না হওয়াই খুব স্বাভাবিক। কিন্তু, আমাদের ধৈর্য যেহেতু কম থাকে তাই পার্টনারকে কয়েকদিনের মধ্যেই নিজের পছন্দ মতো করে গড়ে তোলার চেষ্টা করি। সেটা একেবারেই ভুল। আর সেখানেই সমস্যা তৈরি হয়। অভিভাবকরা কিন্তু, সেটা কখনওই করেন না। তাঁরা একে অপরের ধৈর্য ধরে দীর্ঘদিন থাকেন। তারপর তো পার্টনারের খারাপ ভালো সব গুণই আপনার গা সওয়া হয়ে যাবে।
কখন কম্প্রোমাইজ় করার দরকার

  • আমরা সব সময় নিজের ইচ্ছেতেই চলার চেষ্টা করি। কোনও ভালো কথাও আমরা শোনার চেষ্টা করি না। সব থেকে বড় বিষয় কখন একটা সম্পর্কে কম্প্রোমাইজ় করার দরকার সেটাও আমরা সঠিকভাবে বুঝতে পারি না। সেটাও অভিভাবকদের থেকে শেখা দরকার। আমরা ভাবি কম্প্রোমাইজ় করলেই বুঝি আমরা ছোটো হয়ে গেলাম। আসলে সব জিনিস বই পড়ে বোঝা সম্ভব হয় না। কয়েকটা জিনিস হাতে কলমে বুঝতে হয়।

অতীতকে ধরে রাখা

  • অতীতকে আমরা সব সময় ধরে রাখি। সেটা যতই খারাপ হোক না কেন সব সময় আমরা তাকে ধরে রাখি। আর সেই খারাপ লাগাগুলিকে বর্তমান সম্পর্কের মধ্যেও টেনে আনি। কিন্তু, সেটা একেবারেই ঠিক না। পুরোনো জিনিস একেবারেই ভুলে যাওয়া দরকার। নতুন যে সম্পর্ক শুরু করছেন সেটাকে গুরুত্ব দিন।

অভ্যাস একঘেয়েমী হয়ে যায়

  • আপনারের একটা অভ্যাস রয়েছে। যার জন্যই আপনি তাঁকে ভালোবেসেছেন। কিন্তু, কয়েকটা দিন যেতে না যেতেই সেই অভ্যাস আপনার বিরক্ত লাগতে শুরু করে। সেটা একেবারেই ঠিক না। আপনিও পার্টনারের সেই অভ্যাস পরিবর্তন করার চেষ্টা করেন। এটাই ভুলে যান যে একদিন সেই অভ্যাসই আপনার ভালো লেগেছিল। যার জন্যই আপনি পার্টনারকে বেছে নিয়েছিলেন।

সঙ্গীকে গুরুত্ব দিন

  • সঙ্গীকে গুরুত্ব দিন। সেটা খুবই প্রয়োজনীয়। কিন্তু, কখনও আমরা নিজেকে একটু বেশি গুরুত্ব দিয়ে ফেলি। আর নিজেকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে সঙ্গীকে গুরুত্ব দিতে ভুলে যাই। সেটা কখনওই ঠিক না। আমাদের সবার এই শিক্ষাগুলি অভিভাবকদের থেকে নেওয়া প্রয়োজন। তাঁরা যে শিক্ষা দেবেন তা কোনও বই দিতে পারবে না।


CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ব্যবসা-বাণিজ্য

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  জনমত পঞ্চমত ২০১৮

  MAJOR CITIES